সৌমিত্র ঘোষের কবিতা

উত্তরবঙ্গের বন-বসতি-মানুষ নিয়ে কাজ। তথ্যচিত্রকার। সামাজিক ও রাজনৈতিক আন্দোলনের কবি।

জন্মদিন

যামিনী যাপন হলো,নিশিরাত, চাঁদ-খাওয়া ফিকে অন্ধকারে
ফিরে এলো তারা, জ্যোতিষ্কপিন্ড,আলো ছিটকে পড়লো চীৎকারে
এর পর কোন শীত নেই।কুয়াশা ধ্বংস করে ভেসে এলো উপগ্রহস্বর
শুভ জন্মদিন আসে, হাতল বাদামী, বেড়ে যায় উদ্বিগ্ন বছর

নাকের চুলের মতো, সন্না দিয়ে টেনে তুলতে হয়
ভুলে যেতে হয়, উল্কা আছড়ে পড়া তিন লক্ষ হাজার বিস্ময়
ব্যক্তিগত সময়-সারণীও, আজ বিকেলে কাল সকালের কাজ মনে করা
পেট-বুক জ্বালানো উদ্বেগ, বিনিদ্র রাত ঘিরে ঘুমের উদ্‌ভ্রান্ত প্রহরা

পিঠ থেকে সরে যাচ্ছে লেপ, শীত নেই, পায়ের তলা ঠান্ডা হয়ে আসছে না
মাঠ নেই, কমলালেবুর খোসা হাওয়ায় ভাসিয়ে আর যাত্রা দেখতে যাওয়া না
আর কিছু দেখবে না অত্যাচারিত এই চোখ, শিমুল ফুলের রং, নিরুপায়
বেঁচে থাকা শুধু, অন্ধ, অন্ধ খনিপথে ছুটে আসছে গহন ভৌম জল, আয়

দমবন্ধ হয়ে যাবে তবু মৃত্যু হবে না, আর,শীত নেই, ঘুমের মতন শীত
কেউ আর হাত ধরবে না, ঊষাকালে গাইবে না রবীন্দ্র সঙ্গীত

২০১৪

Continue reading